এনজিও কার্যক্রম


এবারে পঞ্চম বারে মত ‘কুমিল্লা এনজিও কার্যক্রম’ শীর্ষক ডিরেক্টরিটি প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। কুমিল্লায় কর্মতর স্থানীয় ও জাতীয় এনজিও সমূহের কার্যক্রমের তথ্য সম্বলিত এ প্রকাশনাটি ইতোমধ্যে বিভিন্ন মহলের মাঝে এক ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। সাম্প্রতিক কালে বিদায় নেওয়া এক কালে বিদায় নেওয়া এক জেলা কর্মকর্তা তার বিদায়ী অনুষ্ঠানে আমাদের প্রতি এক সনির্বন্ধ অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন- আপনার কুমিল্লায় কর্মরত এনজিও’রা সম্মিলিত চেষ্টায় বড় মাপের দুটো কাজ করেন। তাহলো বাৎসরিক এনজিও কার্যক্রম সম্বলিত ডিরেক্টরি প্রকাশ এবং এনজিও মেলা অনুষ্ঠান। এ দু’টো কাজ আপনাদের ব্যাপক পরিচিতি এনে দিয়েছে। সম্মান অর্জনে অবদান রেখেছে। তাই আপনারা মেহেরবানী করে এ দু’টো কাজ চালিয়ে যাবেন। কিন্তু মুশকিল হল- আমাদের এনজিও সমাজের কিছু সিনিয়র সদস্য মাঝে মাঝে প্রশ্ন করে বসেন, এই দেখুননা, যার কারণে বছরের প্রথম কোয়াটারের বদলে ফিন্যান্সিয়াল ইয়ার শেষ করে বের করতে হল। আমরা এ ডিরেক্টরিটি প্রকাশ করি নিজেদের কন্ট্রিবিউশন মদয়ে। জাতীয় তথা বড় এনজিও গুলো দু’হাজার, ছোট এনজিওগুলো মাত্র এক হাজার টাকা কন্ট্রিবিউট করে। এতেও মোচড়ামুচরি হয়। ডিরেক্টরি বের করছেন- ভাল কথা, কিন্তু প্রতিবছর বের করতে হবে কেন? চার/পাঁচ বছর পর পর বের করলে তো হয়। আবার কেউ কেউ তথ্য দিতে গড়িমসি করে। উক্ত মতের অনুসারী ভাইবোনদের সবিনয়ে বলতে চাই যে আমরা সবাই এটা পরিষ্কার করে বুঝতে পারি-উন্নয়ন একটি গতিশীল কর্মপ্রক্রিয়া। আজকে আমরা যে অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছি, গতকাল তা ছিলনা আর আগামীকাল সে অবস্থান থাকবে না।।

ধন্যবাদান্তে-
অধ্যাপক লোকমান হাকিম
নির্বাহী পরিচালক,
পেইজ ডেভেলপমেন্ট সেন্টার, কুমিল্লা
যুগ্ম আহ্বায়ক, সম্পাদনা, কুমিল্লা